হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর মৃত্যুবরণ - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

29 September, 2020

হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর মৃত্যুবরণ


 মইনুল ইসলাম মিশুক, হোমনা, কুমিল্লা:

হোমনার রামকৃষ্ণপুরের ধর্মান্তরিত মুসলমান শহিদ ভাই আর নেই। সকলের নিকট শহিদ ভাইয়ের জন্য দোয়ার দরখাস্ত।


কুমিল্লা জেলার হোমনা উপজেলার অন্তর্গত চান্দেরচর ইউনিয়নের, তালিম নগর গ্রামের শান্তি বনিকের ছেল শান্ত বনিক(বাবাই)। ইসলাম ধর্মের প্রতি অগাধ বিশ্বাস স্থাপন করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে শহিদুল ইসলাম (শহিদ মিয়া) নামে পরিচিতি লাভ করেন।


 পবিত্র ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার আগে অর্থ প্রাচুর্যে আর আভিজাত্যের আয়েশি জীবন যাপন করলেও। ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পরে পৈত্রিক সম্পত্তি টাকা-পয়সা সব ত্যাগ করে তিনি সাদাসিধে জীবন যাপনে গ্রহন করেন। নামাজ, রোজা, ধর্ম কর্মে মনোনিবেশ করেন।


 ইসলাম ধর্ম গ্রহনের পর একেবারে কর্মহীন অবস্থায় শহিদ মিয়া বিয়ে করে সংসার শুরু করেন। বিভিন্ন স্বর্ণের দোকানে কারিগরি করে ও মুসলমান ভাইদের উপহার প্রাপ্তিতেই তাঁর সংসার চলতো বেশ। এর মধ্যেই আল্লাহতায়লা তাকে দুটি সন্তান দান করেন। 

অভাব-অনটন থাকলেও ভালোই চলছিল তার সংসার। হঠাৎ একটি সড়ক দুর্ঘটনায় একটি পা হারিয়ে পঙ্গুত্ববরণ করেন দুই বছর আগে। 

তারপরেও ধৈর্যের সাথে পরিচিতজনদের উপহার (সহযোগিতায়) নিজের চিকিৎসা ও সংসার পরিচালনা করেন যাচ্ছিলেন তিনি।  


গত কয়েক মাস আগে অসুস্থতার তীব্রতা বেড়ে যায় তাঁর। প্রিয় স্ত্রী ও দুই পুত্র সন্তান সবাইকে ঢাকায় রেখে প্রিয় জন্ম এলাকা গ্রামের বাড়ি হোমনায় চলে আসেন শহিদ মিয়া। পরিচিতজন বন্ধু-বান্ধবের বাড়িতেই ফেলে আসা দিনের স্মৃতিচারণ করেই কেটেছে অনেক গুলো দিন।  দিন দিন শরীর অবনতির দিকে যেতে শুরু করলে। গত ১৯ সেপ্টেম্বর চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়ে যান হোমনা সরকারি হাসপাতালে। চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় আজ মঙ্গলবার শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে মহান প্রভুর ডাকে চলে যান পরপারে।


 শহিদ মিয়ার কেউ না থাকার কারণে।

 হাফেজ মাওলানা আব্দুস সালাম ও হোমনা উপজেলা যুবলীগের সদস্য সাইফুল ইসলাম জুয়েল এর সার্বিক সহযোগিতায়, দাফন কাফনের ব্যবস্থা হয়। পরে আজ বেলা ১২ টায় হোমনা কাদেরিয়া তৈয়্যবিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা মাঠ প্রাঙ্গনে জানাজা শেষে, উপজেলা সদরের কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। হাসপাতাল সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যমতে তিনি শারীরিক দুর্বলতা ও ডায়রিয়ায় ভুগছিলেন।


 চোখের সামনে ভেঁসে বেড়াচ্ছে মরহুম শহিদ মিয়ার অর্থবিত্ত আর আভিজাত্যের মায়া ত্যাগ করে।

 পবিত্র প্রিয় ইসলাম ধর্মকে ভালোবেসে ধর্মান্তরিত হয়ে কতটা বদলে গিয়ে সকলের প্রিয় হয়ে উঠেছিলেন তিনি!!! শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করা পর্যন্ত শহিদ মিয়া নামাজ রোজা এবং সততাকে ধরে রেখেছিলেন, খুব শক্ত ভাবে। গত মাসের প্রথম দিকে রামকৃষ্ণপুর বাজারে দেখা হয়েছিলো তাঁর সাথে। বুকের মধ্যে চেপে রাখা কত কথা সেদিন বলেছিলেন আর কেঁদেছিলেন। সর্ব শেষ কথাটি ছিলো "ভাই তোমরার সাথে চলছি ফিরছি কত ভুল করছি ক্ষমা কইরা দিও" অার নামাজটা ছাড়বানা ঈমানডা ঠিক রাইখো"

 আল্লাহ রহমানুর রাহিম দয়াকরে প্রিয় শহীদ ভাইয়ের জীবনের সমস্ত গুনাহগুলো কে ক্ষমা করে দিও জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করুন।

No comments:

Post a Comment