আজ বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ পুত্র শেখ কামালের ৭১তম জন্ম বার্ষিকী - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

05 August, 2020

আজ বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ পুত্র শেখ কামালের ৭১তম জন্ম বার্ষিকী

হাসান সোহান,  জবি প্রতিনিধি:  

শেখ কামাল  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর জ্যেষ্ঠ পুত্র। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তিনি মুক্তিবাহিনীর অন্যতম সংগঠক ছিলেন। যুদ্ধকালীন সময়ে তিনি মহম্মদ আতাউল গণি ওসমানীর এডিসি হিসেবে কাজ করেন। 
১৯৭৫ সালের ১৪ জুলাই তিনি ক্রীড়াবিদ সুলতানা খুকিকে বিয়ে করেন।

টুঙ্গীপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ভাইবোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। শেখ কামাল শাহীন স্কুল থেকে ম্যাট্রিক এবং ঢাকা কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করেন। এইচ, এস, সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবার পর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ থেকে বি.এ. (অনার্স) পাস করেন। যুদ্ধের পর তিনি সেনাবাহিনী ত্যাগ করেন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে যান। সেখান থেকে সমাজবিজ্ঞানে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। তিনি ছায়ানট থেকে সেতার শিখেন।

১৯৭২ সালে শেখ কামাল দেশের প্রথম আধুনিক ক্লাব ঢাকা আবাহানী লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা। তার হাত ধরেই দেশের ক্রীড়াঙ্গনে বলতে গেলে বিপ্লব ঘটেছে এরপর। মাত্র চার বছরে আবাহনী ক্লাব জায়গা করে নেয় দেশের সমর্থকদের হৃদয়ে!

শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকীতে এসে বন্ধু বর্তমানে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন এখনও তাই আক্ষেপ করেন। একদল নরপশু ঘাতকদের হাতে নির্মমভাবে নিহত না হলে দেশের ফুটবলের চেহারাই যে পাল্টে যেতো। কারণ, শেখ কামাল তখন একটি কথাই বলতেন, যা আজও মনে আছে তার বন্ধু কাজী সালাউদ্দিনের, ‘আমরা সবাই মিলে দেশের ফুটবলকে একসময় এশিয়ার শীর্ষ পর্যায়ে নিয়ে যাবো।’

শেখ কামালের সাংগঠনিক দক্ষতা দেখে তখন অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন সবাই। সালাউদ্দিন তাই বলছিলেন, ‘শেখ কামাল বেঁচে থাকলে আজকে আমাদের ক্রীড়াঙ্গনের চেহারাই বদলে যেতো। সে ছিল ভিশনারি ব্যক্তি। আধুনিক ধ্যান-ধারণার সবকিছুই ছিল তার মধ্যে। আমরা ফুটবলে একপর্যায়ে এশিয়ার শীর্ষ পর্যায়ে যেতে পারতাম। সেখান থেকে স্বনিয়ন্ত্রিতভাবে বিশ্ব পর্যায়ে খেলার সুযোগ হতো। আমাদের ফুটবলও ভালো জায়গায় থাকতো।’

১৫ আগস্ট, ১৯৭৫ সালে সেনাবাহিনীর কতিপয় উচ্ছৃঙ্খল সদস্যের হাতে শেখ মুজিবুর রহমানসহ শেখ কামাল ও তার পরিবারের সদস্যরা খুন হন।

No comments:

Post a Comment