কোনাবাড়ীতে কৌশলে স্বাক্ষর ও টিপসই নিয়ে নারী শ্রমিক ছাটাইয়ের অভিযোগ - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

01 July, 2020

কোনাবাড়ীতে কৌশলে স্বাক্ষর ও টিপসই নিয়ে নারী শ্রমিক ছাটাইয়ের অভিযোগ


স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুরঃ  
গাজীপুরের কোনাবাড়ী থানাধীন পারিজাত এলাকার ব্রাইটেক্স স্পোর্টসওয়্যার লিমিটেড নামক কারখানার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেন নারী শ্রমিকরা। 

মহামারী করোনা কালিন সময়ে চাকুরীচ্যুত করায় বিপাকে পরেছেন ওই ৬ নারী পোশাক শ্রমিক। তারা প্রতিকার চেয়ে উপ মহাপরিদর্শক কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর গাজীপুর বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ পত্র দাখিল করেন।

ভুক্তভোগীরা জানান, গত ২৫ জুন ডাচ্ বাংলা ব্যাংক হিসাব খোলার কথা বলে কিছু লেখা ও ফাঁকা কাগজে স্বাক্ষর ও টিপসই নেন কারখানার কর্তৃপক্ষ ।
এর মধ্যে ববিতা নামে একজন অন্তসত্তা নারী শ্রমিকও রয়েছেন।

পরে ২৭ জুন ডিউটিতে প্রবেশ করলে আইডি কার্ড ও হাজিরা কার্ড রেখে দেয় কর্তৃপক্ষ। এবং তাদেরকে জানানো হয় উক্ত স্বাক্ষরিত কাগজ পদত্যাগ পত্র। কারখানা কর্তৃপক্ষ তাদের ১ লা জুলাই থেকে অফিসে আসতে হবেনা বলে জানিয়ে দেয়।


ছাঁটাই কৃত ৬ শ্রমিক হলেন-কুলসুম বেগম (আইডি কার্ড নং- ২৮২৬),নুরজাহান বেগম (আইডি কার্ড নং-৫৩৭৪), সাবিনা বেগম( আইডি কার্ড নং-৫১০৬), সেলিনা খাতুন ( আইডি কার্ড নং-১০৮৩), রাশিদা বেগম ( আইডি কার্ড নং- ২৫০৫) ববিতা খাতুন ( আইডি কার্ড নং-২৯৩১)।

ব্রাইটেক্স স্পোর্টসওয়্যার লিমিটেড কারখানার প্রিন্টিং সেকশনের সহকারী প্রডাকশন ম্যানেজার জোবায়ের আহমেদ প্রতিবেদককে বলেন, তারা যে অভিযোগ করেছে তা সত্য নয়।

তাদের কাছ থেকে ব্যাংক একাউন্ট খোলার কথা বলে কৌশলে কোন সাক্ষর নেওয়া হয়নি।

আমাদের প্রিন্টিং সেকশনে কাজ নাই। তাই তাদের বুঝিয়ে বলা হয়েছে যেহেতু কাজ নেই তোমরা অন্য কোথাও চাকুরী দেখো।

তিনি আরো বলেন,তাদেরকে এটাও বলা হয়েছে আমাদের গার্মেন্টস সেকশনে যদি কোন শ্রমিক নিয়োগ দেন তাহলে তোমাদের নিবো। পরবর্তীতে তারা আর কোন যোগাযোগ করেনি।

এখনো যদি কুলসুম এবং ববিতা ছাড়া ওরা চারজন যদি আসে তারা চাকুরী পাবে। কুলসুম এবং ববিতা খারাপ ভাষায় কথা বলে তাই তাদের নিবোনা।

জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক জোট বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় কমিটির ক্রীড়া সম্পাদক ও কোনাবাড়ী থানার সভাপতি মোঃ আশরাফুজ্জামান বলেন,
শ্রম আইনের বিধান মতে বিনা নোটিশে শ্রমিক ছাঁটাই করা নিষেধ।

শ্রমিকরা স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করতে পারেন সেটাও শ্রম আইনের বিধান মতে ৬০ দিন আগে শ্রমিক নোটিশ দিবে।

এখানে ব্যাংক হিসাব নাম্বার খোলার কথা বলে শ্রমিকদের কাছ থেকে লেখা ও ফাঁকা কাগজে স্বাক্ষর টিপসই নিয়েছে পরবর্তীতে মৌখিক ভাবে বলেছে উক্ত স্বাক্ষরিত কাগজ পদত্যাগপত্র বলে চাকুরী থেকে বিদায় করে দিয়েছে।

এটা সম্পূর্ণ বেআইনি ও প্রতারণা। মাতৃত্বকালীন সময়ে শ্রমিকের কাছ থেকে চালাকি করে কাগজ পত্রে স্বাক্ষর টিপসই নিয়েছে প্রসূতিকল্যাণ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করার উদ্দেশ্য পরিকল্পিত ভাবে করা হয়েছে।

No comments:

Post a Comment