চাঁদপুর জেলায় একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক ৭৩ জনের করোনা শনাক্ত - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

13 June, 2020

চাঁদপুর জেলায় একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক ৭৩ জনের করোনা শনাক্ত



চাঁদপুরে করোনা সংক্রমণের পর একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক ৭৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ১২ জুন শুক্রবার এদের রিপোর্ট আসে। নতুন শনাক্তদের মধ্যে জেলার ৮ উপজেলার বাসিন্দা রয়েছেন।

চাঁদপুর জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, শুক্রবার মোট রিপোর্ট এসেছে ২৭৪টি। এর করোনা পজিটিভ ৭৩টি। আক্রান্তদের মধ্যে ৪জন মৃত।

নতুন শনাক্তের উপজেলা পরিসংখ্যান হলো- চাঁদপুর সদরের ২০জন (মৃত ২জনসহ), হাজীগঞ্জের ১৭জন (মৃত ২জনসহ), হাইমচরের ৫জন, শাহরাস্তির ১১জন, ফরিদগঞ্জের ৫জন, মতলব দক্ষিণের ৭জন, মতলব উত্তর ২জন ও কচুয়ার ৫জন।

এ নিয়ে ১২ জুন পর্যন্ত জেলায় মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৬৬ জন। আর মৃতের সংখ্যা বেড়ে হলো ৩১ জন। সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, চাঁদপুরে জেলায় বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত ৩৬৬ জনের উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যান হলো : চাঁদপুর সদরে ১৫৭ জন, ফরিদগঞ্জে ৪৯ জন, হাজীগঞ্জে ৪২ জন, শাহরাস্তিতে ৩৪ জন, মতলব দক্ষিণে ৩০ জন, কচুয়ায় ২৩ জন, মতলব উত্তরে ১৬ জন ও হাইমচরে ১৫ জন।

এছাড়া জেলায় মোট ২৫ জন মৃতের উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যান হলো : চাঁদপুর সদরে ১০ জন, কচুয়ায় ৪জন, ফরিদগঞ্জে ৪জন, হাজীগঞ্জে ৫ জন, শাহরাস্তিতে ৩জন, মতলব উত্তরে ২জন ও মতলব দক্ষিণে ১জন।।

সিভিল সার্জন ডা. সাখাওয়াত উল্লাহ জানান, ১১ জুন চাঁদপুর থেকে আরো ২৪১টি নমুনা পাঠানো হয়েছে ঢাকায়। এ নিয়ে প্রেরণকৃত নমুনার সংখ্যা দাঁড়ালো ২৭২৭টি। রিপোর্ট এসেছে ২১২২টি। রিপোর্ট অপেক্ষমান ৬০৫টি।

তিনি আরো জানান, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত ২৯৩ (আজকে সংখ্যা এতে নেই) জনের মধ্যে এরইমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭৬জন। চিকিৎসাধীন আছেন ১৯২জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ১৫৮জন। এর মধ্যে ইতিমধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ১২৪জন। বর্তমানে আইসোলেশনে রোগীর সংখ্যা ৩৪জন।

এছাড়া জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির পরিসংখ্যান ৪৪১৭জন। এর মধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৩৬৫১জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৭২৪জন।

এদিকে সর্বোচ্চ সংখ্যক ৭৩ জনের এ পরিসংখ্যানের বাইরে চাঁদপুরে করোনা উপসর্গে বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত মারা গেছেন ৭ জন। এদর মধ্যে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ছিলেন ৩ জন।

No comments:

Post a Comment