গাজীপুরে ভাড়াটিয়াকে মারলো বাড়ীওয়ালা, পোশাক শ্রমিকরা ভাঙ্গলো ঘরবাড়ী - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

18 May, 2020

গাজীপুরে ভাড়াটিয়াকে মারলো বাড়ীওয়ালা, পোশাক শ্রমিকরা ভাঙ্গলো ঘরবাড়ী


মোঃ মোখলেছুর রহমান, স্টাফ রিপোর্টার  :
গাজীপুর মহানগরীর কোনাবাড়ী বাইমাইল নওয়াব আলী মার্কেট এলাকায় বাড়ী ভাড়াকে কেন্দ্র করে ব্যাপক ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।        স্থানীয়রা জানায়   সোমবার (১৮ মে) সকাল সাড়ে ৭ টা সময় স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের  কয়েক হাজার শ্রমিক অতর্কিত ভাবে এসে আশে পাশের আট থেকে ১০ টি বাড়ী ফিলিম স্টাইলে  ভাংচুর করে দূত পালিয়ে যায়। শুধু তাই নয় ব্যক্তিগত তিনটি প্রাইভেট কারসহ দুইটি মোটর সাইকেল পানির ট্যাংকি এবং ঘরের ভিতরে তান্ডব চালায় গার্মেন্টস শ্রমিকরা। ভাংচুর করা বাড়ী গুলো হলো সিরাজুল ইসলামের বাড়ী আজিজুল হকের বাড়ী নজরুলের বাড়ী জাকিয়া বেগমের বাড়ী এবং খলিলুর রহমানের বাড়ীসহ ১০ টি বাড়ী ভাংচুর করে বলে জানান তারা । সিরাজুল ইসলামের ছেলে মেহেদী হাসান জানান,আমার চাচা আজিজুল হক ও তার দুই ম্যানেজার বিষু ও নজরুল মিলে বহিরাগত লোক ভাড়া করে এনে  ১২ জন ভাড়াটিয়াকে মারধর করে। এর মধ্যে একজনের অবস্থা আশংকা জনক বলে জানান তিনি। ভাড়াটিয়াদের মারার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, বর্তমানে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) এর ফলে শ্রমিকরা বেতন ৬০% পাওয়ায় বাড়ী ভাড়া কম দিতে চেয়েছিলো। চাচা আজিজুল হকের ধারণা ঐ ১২ জন শ্রমিক  বাড়ী ভাড়া কমানো নিয়ে সব ভাড়াটিয়াদের উসকানি দিচ্ছে। তাই লোক ভাড়া করে এনে তাদের উপর সন্ত্রাসী কায়দায় মারধর করে। 

এঘটনার পর থেকে আজিজুল হক পলাতক রয়েছেন বলে জানান ভাতিজা মেহেদি হাসান। তিনি আরো বলেন,আজকে চাচার ভুলের খেসারত দিতো হলো আমাদের সবাইকে। মেহেদি হাসান জানান,আমার ব্যক্তিগত প্রাইভেট কারটির মূল্য ২৬ লাখ টাকা। এটাও ভেঙ্গে তছনছ করেছে শ্রমিকরা। এবিষয়ে জানতে কথা হয় স্থানীয়  কাউন্সিলর মোঃ আব্বাস উদ্দিন খোকনের সাথে তিনি বলেন,সকালে খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যাই। বাড়ীর মালিকদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, বাড়ী ভাড়া কমানো নিয়ে কিছু ভাড়াটিয়া নাকি মিছিল করেছে। তাই আজিজুল হক নামের এক বাড়ীর মালিক তারবাসার ভাড়াটিয়াসহ  সিরাজুল ইসলামের বাড়ীর ১২ জন ভাড়াটিকে মারধর করে। পরে এটা স্থানীয় ভাবে মিমাংসা করার কথা ছিলো। কিন্তু এর আগেই আজ সকালে এসে গার্মেন্টস শ্রমিকরা  বাড়ী ঘর ভাংচুর করে। 

এব্যাপারে কোনাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদ হোসেন  বাড়ী ও গাড়ী ভাংচুরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে এবিষয়ে থানায় কোন অভিযোগ হয়নি বলে জানান তিনি। তিনি আরো বলেন বিষয়টি স্থানীয় কাউন্সিলরকে নিয়ে মিমাংসা করবে বলে জানানো হয়।

No comments:

Post a Comment