স্বামীর পরকীয়া প্রেমে বাধা দেওয়া অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা স্বামী সহ গ্রেফতার ৩ - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

31 May, 2020

স্বামীর পরকীয়া প্রেমে বাধা দেওয়া অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা স্বামী সহ গ্রেফতার ৩



ডেস্ক রিপোর্টঃ  
কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার হাসনাবাদ ইউনিয়নের বাদুয়াপাড়া গ্রামে পরকিয়া প্রেমের জের ধরে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা করেন স্বামী তোফাজ্জল হোসেন জুলহাস। তার পিতা আব্দুর রব ও তার মা মালেকা বেগম।
নিহতের পিতা সাহেব আলী বাদী হয়ে স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন মনোহরগঞ্জ থানায়। পুলিশ তিন জন আসামি কে গ্রেফতার করেন, এবং
শারমিন বেগমের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় থানা পুলিশ।


জানা গেছে, বিগত পাঁচ বছর আগে মনোহরগঞ্জ উপজেলার বাদুয়াপাড়া গ্রামের আব্দুর রবের ছেলে, তোফাজ্জল হোসেন জুলহাসের সঙ্গে রামগঞ্জ উপজেলার সাহেব আলীর মেয়ে শারমিন বেগম এর সাথে ২৫০০০০/ হাজার টাকা দেনমোহরে তাদের বিয়ে হয়। তাদের ঘরে তন্নী আক্তার নামে ৪ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
শারমিনের বাবা সাহেব আলী বলেন, আমার জামাই তোফাজ্জল হোসেন জুলহাস দীর্ঘদিন যাবত পরকীয়া করে আসছে। আমার মেয়ে বিষয়টি জানতে পেরে তার স্বামীকে একাধিক বার বাধা দেয়। জুলহাস কিছুতে তার কথা শুনেনি। তাকে পরকীয়া প্রেমে বাধা দিলে সে আমার মেয়ের উপর অমানবিক নির্যাতন চালাতো। গত ২৯/৫/২০২০ ইং তারিখে এই পরকীয়ার জেরে আমার মেয়েকে হত্যা করে তোফাজ্জল হোসেন জুলহাস ও তার পরিবার। এই পরকীয়ার জেরে প্রায় সময় তাদের মধ্যে বিরোধ লেগেই থাকতো।

এই বিষয়ে মনোহরগঞ্জ থানার ওসি মেজবাহ্ উদ্দিন ভূঁইয়া কাছে থেকে জানতে চাইলে তিনি জানান, মেয়ের বাবা তিন জনকে আসামি করে, থানায় একটি মামলা দায়ের করেন আমরা তিন জন আসামি কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করি। এবং লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে

No comments:

Post a Comment