হটাৎ গাড়ি থেকে নেমেই ধান কাটা শুরু করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

25 April, 2020

হটাৎ গাড়ি থেকে নেমেই ধান কাটা শুরু করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী


ডেস্ক রিপোর্টঃ 
কৃষকের সঙ্গে জমিতে ধান কাটলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। নাটোরের সিংড়া উপজেলার রামানন্দ খাজুরা ইউনিয়নের কৈগ্রামে কৃষকের ধান কেটে দেন তিনি।

শনিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে কৈগ্রাম এলাকায় শ্রমিকদের ধান কাটা দেখে হঠাৎ গাড়ি থেকে নেমে পড়েন প্রতিমন্ত্রী। পরে আখের আলী নামে এক কৃষকের জমিতে ধান কাটেন তিনি।
এ সময় প্রতিমন্ত্রীর ধান কাটা দেখে অবাক হন শ্রমিকরা। পরে আখের আলীর কাঁধে হাত রেখে কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। সেই সঙ্গে এলাকার বোরো ফলন সম্পর্কে খোঁজখবর নেন। পানিতে নেমে প্রতিমন্ত্রীকে ধান কাটতে দেখে উপস্থিত শ্রমিক এবং প্রতিমন্ত্রীর গাড়িবহরের লোকজন অবাক হয়ে যান।
তাদের উদ্দেশ্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি চলনবিলের কৃষকের সন্তান, মাটি ও মানুষের সন্তান। ধান কাটলে লজ্জার কিছু নেই। সবসময় কৃষকের পাশে ছিলাম, এখনও আছি, ভবিষ্যতেও থাকব।
এর আগে গত বুধবার ঝড়ে সিংড়া উপজেলার ছাতারদিঘী ইউনিয়নের ছাতারদিঘী এবং রামানন্দ খাজুরিয়া ইউনিয়নের বাদোপাড়া স্কুল মাঠে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের কৃষিজমি ও ঘরবাড়ি ঘুরে দেখেন প্রতিমন্ত্রী। এরপর ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মাঝে নগদ টাকা ও টিন বিতরণ করেন তিনি।
এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, চলনবিল কৃষিপ্রধান এলাকা। চলনবিলের ধান নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে সারা দেশে চাহিদার কিছু অংশ পূরণ করে। কিন্তু ঝড়ের কারণে সিংড়া উপজেলার প্রায় তিন হাজার হেক্টর জমির বোরো ধান ঝরে পড়েছে। অনেকের ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এ অবস্থায় ধৈর্য ও সহনশীলতার সঙ্গে ক্ষতি মোকাবিলা করতে হবে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার- কৃষিবান্ধব সরকার। তাই কৃষকদের পাশে অতীতে যেমন ছিল, বর্তমানে আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে সরকার। কৃষকদের উন্নয়নে সরকার কাজ করছে। ভর্তুকি দিচ্ছে, বিনামূল্যে সার ও বীজ দিচ্ছে। পর্যায়ক্রমে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে সহায়তা দেয়া হবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সিংড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাসরিন বানু, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ওহিদুর রহমান শেখ, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলতাব হোসেন আকন্দ ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাজাহান আলী প্রমুখ।

সৌজন্যে: জাগো নিউজ 

No comments:

Post a Comment