ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর পোষাকের ভরসা আর্যেশরী বুটিক হাউজ - Alorpoth24.com | সত্য প্রকাশে কলম চলবেই

শিরোনাম

24 November, 2018

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর পোষাকের ভরসা আর্যেশরী বুটিক হাউজ



ডেস্ক রিপোর্টঃ 

পার্বত্য অঞ্চলে ঘুরতে গিয়ে উপজাতিদের পোশাক কিনে আনেননি এ রকম মানুষ খুব কমই আছেন। একসময় তাদের পোশাক কিনতে হলে যেতে হত ওই অঞ্চলে। এখন বিভিন্ন দোকানেই পাওয়া যাচ্ছে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর পোশাক। তবে আলোচনা সমালোচনা যেটাই হোক ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এসব পোশাক বাঙালিদের কাছে পরিচিতি পেয়েছে উপজাতি পোশাক হিসেবে। তাদের স্বকীয় আর ঐতিহ্যবাহী পোশাক ও গহনায় ভিন্নতা থাকায় তা ফ্যাশন হিসেবেই ব্যবহৃত হচ্ছে সাধারণ মানুষের কাছে।    

চাকমা, মারমা, মগ, মুরং, সাঁওতালসহ আরও প্রায় ৪০টির মতো ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী রয়েছে বাংলাদেশে। তাদের প্রত্যেকেরই রয়েছে নিজস্ব ধরন। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অবশ্য মিলও খুঁজে পাওয়া যায়। এই সব পোশাক নিয়ে আমাদের ফ্যাশন ডিজাইনাররা প্রতিনিয়ত নিরলস চেষ্টায় ফুটিয়ে তুলছেন নিত্যনতুন সব ডিজাইন।


বাংলাদেশে উপজাতিদের পোশাক যেসব ফ্যাশন হাউজে পাওয়া যায় সেগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে আর্যেশরী বুটিক হাউজ। এই বুটিক হাউজটি তরুণদের কথা মাথায় রেখে এসব পোশাকের পাশাপাশি নিত্যব্যবহার্য জিনিসপত্রও বিক্রি করছেন। এখানে পাওয়া যাবে উপজাতিদের শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠদের তৈরি গামছা, ওড়না, চাদর, ব্যাগ ও গৃহসজ্জার সামগ্রী। এসব পোশাক ও নিত্যব্যবহার্য জিনিসপত্র আর্যেশরী বুটিক হাউজের নিজস্ব কর্মচারীদের সুনিপন হাতে তৈরী করা হয়।
এ প্রসঙ্গে আর্যেশরী বুটিক হাউজ সত্বাধিতারী সৌম্য চাকমা বলেন, কোন কোন ড্রেস তৈরী করতে ১মাস অথবা ২মাসের মত সময় লাগে কেননা এসকল ড্রেস ক্রেতাদের চাহিদার প্রাধান্য দিয়ে আমাদের নিজস্ব কর্মচারীদের দিয়ে তেরি করে থাকি।
আর্যেশরী বুটিক হাউজের নিজস্ব শোরুম রাঙামাটির বিজন স্মরণী তে রয়েছে। এখানে ক্রেতারা সরসরি তাদের পছন্দের পোষাক কিনতে পারবে। এছাড়াও তাদের এসব বাহারি পোষাক অনলাইনেও থেকেও আপনি ক্রয় করতে পারবেন। তাদের ফেসবুক পেইজটি হচ্ছে,

www.facebook.com/Aryeshwari BoutiquePerabah


অনলাইনে যে কোন দ্রব্য সামগ্রী সুন্দর ভাবে গ্রাহকের কাছে উপস্থাপন করার জন্য প্রয়োজন দ্রব্যটির ভালো মানের ছবি। যা একজন গ্রাহকের কাছে আকৃৃষ্ট করে তোলে। আর আর্যেশরী বুটিক হাউজের এবারের নতুন সব পোশাকের ফটোশুট করেছেন বর্তমান সময়ের আলোচিত ফটোগ্রাফার রাহুল রায় মিশুক। 

এ ব্যাপারে সৌম্য চাকমা বলেন, অনলাইনে যে কোন পণ্য গ্রাহকের কাছে আকৃষ্ট করে তার সুন্দর ছবি। আমাদের রাহুল ভাই আমার পণ্যের ছবিগুলো তার ফটোগ্রাফির মাধ্যমে সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করার চেষ্ঠা করেছে। রাঙামাটির বিভিন্ন মনোরম দৃশ্যে তিনি এসবের দৃশ্যায়ন করেছেন। ফটোশুটে মডেল ছিলেন ত্রিপানা, কলি, বান্নি ও সোলিয়া।

No comments:

Post a Comment